Class 8 Bengali chapter 06 সবুজ জামা

সবুজ জামা – বীরেন্দ্র চট্টোপাধ্যায়

কবি পরিচিতি

বীরেন্দ্র চট্টোপাধ্যায় ১৯২০ খ্রিস্টাব্দে জন্মগ্রহন করেন। তিনি ছিলেন আধুনিক যুগের কবি। তাঁর প্রধান কাব্যগ্রন্থগুলি হলো মহাদেবের দুয়ার, মানুষের মুখ, লখিন্দর, গ্রহচ্যুত ইত্যাদি। তিনি বহু কাব্যগ্রন্থের অনুবাদও করেছেন।

 

সারাংশ

এই কবিতায় অল্পবয়সি তোতাই ভাবে, গাছেরা সবুজ জামা পরে থাকে তাই তোতাইবাবুরও সবুজ জামা চাই। সে পড়তে যেতে চায়না, স্কুলেও যেতে চায়না। গাছেরা যেমন একপায়ে দাঁড়িয়ে থাকে, সেটা তোতাইয়ের কাছে একটি খেলা। সে ভাবে সবুজ জামা পড়লেই তার ডালে প্রজাপতি বসবে, ফুল-ফল ফুটবে আর তার কোলের উপর টুপ করে ফুল নেমে পড়বে। সমগ্র কবিতায় কবি মানবজীবনের সামগ্রিক প্রানশক্তিকে তুলে ধরতে চেয়েছেন।

 

হাতে কলমে

১.১ বীরেন্দ্র চট্টোপাধ্যায় কত খ্রিস্টাব্দে জন্মগ্রহন করেন?

উঃ- বীরেন্দ্র চট্টোপাধ্যায় ১৯২০ খ্রিস্টাব্দে জন্মগ্রহন করেন।

১.২ তাঁর রচিত দুটি কাব্যগ্রন্থের নাম লেখো।

উঃ- তাঁর রচিত দুটি কাব্যগ্রন্থের নাম হল রাণুর জন্য ও লখিন্দর।

২. নীচের প্রশ্নগুলির একটি বাক্যে উত্তর দাওঃ

২.১ তোতাইবাবুর সবুজ জামা চাই কেন?

উঃ- তোতাই বাবু গাছেদের মতো হতে চায় তাই তার সবুজ জামা চাই।

২.২ সবুজ গাছেরা কোন পতঙ্গ পছন্দ করে?

উঃ- সবুজ গাছেরা প্রজাপতি পছন্দ করে।

২.৩ সবুজ জামা আসলে কী?

উঃ- সবুজ জামা হল রাশি রাশি সবুজ পাতার সমারোহ। কবিতায় এটি সবুজ প্রাণের প্রতীক।

২.৪ ‘এক পায়ে দাঁড়িয়ে থাকা তো খেলা’ – এখানে কোন খেলার কথা বলা হয়েছে?

উঃ- এখানে গাছ এক পায়ে দাঁড়িয়ে থাকে কবিতায় শিশুটি অর্থাৎ তোতাইবাবুও এক পায়ে খেলাচ্ছলে দাঁড়িয়ে থাকে।

২.৫ তোতাই সবুজ জামা পরলে কী কী ঘটনা ঘটবে?

উঃ- সবুজ গাছের ডালে যেমন রঙিন প্রজাপতি এসে বসে তেমনি তোতাই সবুজ জামা পড়লে তার গায়ে প্রজাপতি এসে বসবে এবং লাল-নীল ফুল টুপ করে তার কোলে ঝরে পড়বে।

৩. নীচের প্রশ্নগুলির উত্তর নিজের ভাষায় লেখোঃ

৩.১ ‘দাদু যেন কেমন, চশমা ছাড়া চোখে দেখে না’। – এই পঙক্তির মধ্যে “যেন” শব্দটি ব্যবহৃত হয়েছে কেন? এই রকম আর কী কী শব্দ দিয়ে একই কাজ করা যায়?

উঃ- “যেন” একটি অব্যয় পদ, এটি কল্পনা অর্থে ব্যবহৃত হয়। আলোচ্য পঙক্তির মধ্যে ‘যেন’ শব্দটি ব্যবহৃত হয়েছে কারন কবিতার শিশুটি গাছের সৌন্দর্য দেখে অবাক হচ্ছে, সে গাছের মতো সজীব ও পরোপকারী হতে চাইছে। কিন্তু সমাজে দাদুর মতো মানুষরা নির্বিচারে গাছ কাটা, পৃথিবী থেকে সবুজের ধ্বংস হয়ে যাওয়া যেন দেখেও দেখতে পাননা, তারা এটিকে সহজভাবে মেনে নিয়েছে। দাদু যে গাছের ধ্বংস দেখেও দেখতে পাননা তেমনই অনুমান কবিতার শিশুটির, সেই অর্থেই ‘যেন’ শব্দটি ব্যবহৃত হয়েছে।

        এইরকম আর হয়ত, কী রকম প্রভৃতি শব্দ দিয়ে একই কাজ করা যায়।

৩.২ ‘সবুজ জামা’ কবিতায় তোতাইইয়ের সবুজ জামা চাওয়ার মাধ্যমে কবি কী বলতে চাইছেন তা নিজের ভাষায় লেখো।

উঃ- বীরেন্দ্র চট্টোপাধ্যায়ের লেখা “সবুজ জামা” কবিতায় সবুজ জামা চাওয়ার মাধ্যমে কবি বোঝাতে চেয়েছেন তোতাইয়ের মতো নতুন প্রজন্মের মনে সবুজের প্রতি টান আসুক। তাঁদের শিশুকাল থেকেই বর্তমানের ইঁদুর দৌড়ের প্রতিযোগিতায় না নামিয়ে তাদেরকে প্রকৃতির সাথে মিশতে, খেলতে দেওয়া হোক, তবেই তারা প্রকৃতির মতোই উদার, মহান, পরোপকারী হয়ে উঠবে। ফুল যেমন বাতাসে সুগন্ধ ছড়ায়, সেই শিশুদের কর্ম প্রচেষ্টাও সমাজ ও পৃথিবীকে সুরভিত করবে।

৪. নির্দেশ অনুসারে উত্তর দাওঃ

৪.১ ‘ইস্কুল’ শব্দটির ধ্বনিতাত্ত্বিক ব্যাখ্যা লেখো এবং একই রকম আরো দুটি শব্দ লেখো।

উঃ-

স্কুল > ইস্কুল (“ই” ধ্বনি আগমন) = আদি স্বরাগম
স্ত্রী > ইস্তিরি
স্টেশন > ইস্টিশন

৪.২ ‘চোখ’ শব্দটিকে ভিন্ন অর্থে ব্যবহার করে অন্তত তিনটি বাক্য লেখো।

উঃ-    

১. চোখ (নজর) = শিশুটিকে চোখে চোখে রাখবে।
২. চোখ (জ্ঞান লাভ) = মাস্টারমশাই ভুলটা ধরিয়ে দিয়ে আমার চোখ খুলে দিয়েছেন।
৩. চোখ (ইন্দ্রিয়) = সুমনের দুচোখ ভরে জল এলো।

 

অতিরিক্ত প্রশ্ন-উত্তর

১. কবি বীরেন্দ্র চট্টোপাধ্যায়ের প্রথম রচনা কী?

উঃ- কবি বীরেন্দ্র চট্টোপাধ্যায়ের প্রথম রচনা হলো গ্রহচ্যুত।

২. কে সবুজ জামা পরে থাকে?

উঃ- গাছেরা সবুজ জামা পড়ে থাকে।

৩. কার সবুজ জামা চাই?

উঃ- তোতাইয়ের সবুজ জামা চাই।

৪. কে চশমা ছাড়া দেখেন না?

উঃ- দাদু চশমা ছাড়া দেখেন না।

৫. কবিতায় কোন খেলার কথা বলা হয়েছে?

উঃ- কবিতায় এক পায়ে দাঁড়িয়ে থাকা খেলার কথা বলা হয়েছে।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top